স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে জাতীয় পর্যায়ে নির্বাচনী অলিম্পিয়াড সম্পন্ন

election_olympiad_07গত ৩ সেপ্টেম্বর, ২০০৭ ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক-এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় পর্যায়ে সচেতনতামূলক ‘নির্বাচনী অলিম্পিয়াড’ । সারা দেশের ৩০টি অঞ্চলে অনুষ্ঠিত বিজয়ী শিক্ষার্থীরা এ অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করে। সকাল থেকেই বিভিন্ন এলাকার অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা অনুষ্ঠানস্থল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সষ্টিটিউশন মিলনায়তনে জড়ো হতে থাকে। সকাল ৯.০০টায় এ সকল বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে অতিথি, অভিভাবক, শিক্ষক, সাংবাদিক ও সুজন-এর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হলে অনুষ্ঠানস্থলে এক আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টি হয়। সাউথ ইষ্ট ব্যাংক লিমিটিড-এর আর্থিক সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতার মিডিয়া পার্টনার ছিল চ্যানেল আই।

জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হবার পর সকাল ৯.০৫টায় পরীক্ষা অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। এ পর্বে সারা দেশ থেকে আগত প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। পরীক্ষা শেষে ‘সুজন’-সভাপতি অধ্যাপক মোজাফ্‌ফর আহমদ-এর সভাপতিত্বে একটি বিশেষ মুক্ত আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এ পর্বে শিক্ষার্থীরা ড্যামি প্রার্থী, প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা, নির্বাচনী রোডম্যাপ, চাঁদাবাজি, নারী প্রতিনিধিত্বসহ সাম্প্রতিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন রাখেন। ‘সুজন’-এর কেন্দ্রিয় কমিটির সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদারের পরিচালনায় প্রশ্নোত্তর পর্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা জনাব মোঃ হাফিজ উদ্দিন খান ও জনাব এ এসএম শাহাজাহান, সাবেক মন্ত্রী জনাব আবুল মাল আব্দুল মুহিত, বিশিষ্ট কলামিস্ট ও গবেষক জনাব সৈয়দ আবুল মকসুদ, ডেমোক্রেসী ওয়াচের প্রধান নির্বাহি জনাব তালেয়া রেহমান, সাবেক অতিরিক্ত সচিব জনাব বদরে আলম খান, সাউথইষ্ট ব্যাংক লিমিটেড-এর ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর জনাব সৈয়দ ইমতিয়াজ হাসিব ও নাগরিক উদ্যোগের প্রধান নির্বাহি জনাব জাকির হোসেন আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

মুক্ত আলোচনা পর্বের শুরুতে ‘সুজন’-এর কর্মকাণ্ড তুলে ধরে অধ্যাপক মোজাফ্‌ফর আহমদ তার স্বাগত বক্তব্যে বলেন, আমরা দেখতে চাই এমন একটা নির্বাচিত প্রতিনিধিত্বশীল অংশিদারিত্বমূলক গর্ভনেন্স যেখানে জনগণের আশা-আকাঙক্ষার প্রতিফলন ঘটবে। আর সে লক্ষ্যেই ‘সুজন’ কাজ করে যাচ্ছে, সচেতনতার জোয়ারে সকলকে টেনে আনাই আমাদের উদ্দেশ্য। তিনি বলেন, নির্বাচন আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার কিন্তু আমরা সচেতন না হলে এ অধিকার ধরে রাখতে পারব না। তিনি উপস্থিত সকল শিক্ষার্থীকে উদ্দেশ্য করে আরো বলেন, তোমরা এখন একজন সচেতন নাগরিক। তোমাদের অধিকারের স্বার্থে, এলাকার স্বার্থে, দেশের স্বার্থে তোমরা এগুলো স্মরণ রাখবে এবং নির্বাচিত হয়ে যারা দেশ পরিচালনার দায়িত্বে যাবে তাদের এগুলো স্মরণ করিয়ে দিতে ভূমিকা পালন করবে – জাতি এখন তোমাদের কাছে এটাই প্রত্যাশা করে।

Advertisements