গণতন্ত্র অলিম্পিয়াডের ধারণা পত্র

সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক
সচিবালয়: ৩/৭ আসাদ এভিনিউ, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭, ফোন: ৮১১২৬২২, ৮১২৭৯৭৫, ওয়েবসাইট: http://www.shujan.org

গণতন্ত্র অলিম্পিয়াড

ধারণা পত্র

প্রেক্ষাপট: দুর্নীতি, দুর্বৃত্তায়ন, সাধারণ মানুষের বঞ্চনা ইত্যাদি কারণে আমাদের বহু কষ্টার্জিত গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা আজো সুদৃঢ় হয়নি। এ ব্যবস্থার ইতিবাচক পরিবর্তন তথা গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হলে নাগরিকদেরকে সচেতন, সোচ্চার ও সক্রিয় করার কোনো বিকল্প নেই। কারণ ইতিহাসের শিক্ষা হলো যে, জাগ্রত জনতাই গণতন্ত্রের রক্ষাকবচ।

তাই নাগরিকদের সচেতন করার একটি কৌশলগত পদক্ষেপ হিসেবে আমরা ‘সুজন’ এর উদ্যোগে সারাদেশের তরুণ সমাজ বিশেষত ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে ‘গণতন্ত্র অলিম্পিয়াড’ নামে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।

লক্ষ্য: গণতান্ত্রিক চেতনাবোধ সম্পন্ন জাতি গঠন।

উদ্দেশ্য: ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা, যাতে তারা সংগঠিতভাবে গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করে।

কাঙ্খিত ফলাফল:
এই উদ্যোগের ফলে অংশগ্রহণকারীরা –

  • গণতন্ত্র, সংবিধান, আইন-কানুন, নির্বাচন প্রক্রিয়া, নাগরিক অধিকার, নাগরিকদের দায়িত্ব ও কর্তব্য, আন্তর্জাতিক বিষয়াবলী ইত্যাদি সম্পর্কে সচেতন হবে।
  • নাগরিক হিসাবে দেশের জন্য ভূমিকা রাখতে উদ্বুদ্ধ হবে।
  • সংগঠিত হয়ে দেশের গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করবে।

লক্ষ্যমাত্রা:

  • সারাদেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে গণতন্ত্র অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানভিত্তিকভাবেও অলিম্পিয়াড আয়োজন করা যেতে পারে।
  • একটি অলিম্পিয়াডে ন্যূনতম ৩০০ জন, সর্বোচ্চ ৮০০ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশগ্রহণ করতে পারবে।

অনুষ্ঠানের সময়: অর্ধ দিবস (সকাল ৯.০০ টা থেকে দুপুর ১.০০ টা পর্যন্ত)

অনুষ্ঠান সূচি:

  • সকাল ৯:০০ টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে উদ্বোধন।
  • সকাল ৯:১৫ পরীক্ষার প্রস্তুতি।
  • সকাল ৯:৩০ টায় ৩০ মিনিটের একটি পরীক্ষা।
  • সকাল ১০:০০ টা – ১২:৩০ টা পর্যন্ত মুক্ত আলোচনা।
  • দুপুর ১২:৩০ টা – ১.০০ টা পর্যন্ত ফলাফল ঘোষণা ও পুরস্কার বিতরণী।

ভেন্যু:

  • অনুষ্ঠানের ভেন্যু হবে যে কোন জেলা বা উপজেলা সদরসহ যে কোন সুবিধাজনক স্থানে নির্ধারণ করা যেতে পারে।
  • কোন কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজন করলে ভাল হয়।
  • ভেন্যুতে ৩০০-৮০০ ছাত্র-ছাত্রী একসাথে বসে পরীক্ষা দেবার মতো পর্যাপ্ত শ্রেণীকক্ষ ও বসার ব্যবস্থা থাকতে হব
  • পরীক্ষা শেষে মুক্ত আলোচনার জন্য একটি বড় হল রুম প্রয়োজন হবে, যেখানে অতিথিসহ সকল অংশগ্রহণকারী একসাথে বসতে পারে।

অংশগ্রহণকারী:

  • অংশগ্রহণকারীরা হবে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী।
  • একটি অলিম্পিয়াডে সংশ্লিষ্ট জেলার আওতাধীন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীগণ অংশগ্রহণ করতে পারবে। আয়োজকরা মনে করলে, অন্য জেলার ছাত্র-ছাত্রীদেরকেও অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে পারবেন।
  • উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয়কে অগ্রাধিকার দিতে হবে।

প্রশ্নপত্র:

  • কেন্দ্রীয়ভাবে একটি টিম পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরি করবে
  • প্রতিটি অলিম্পিয়াডে প্রশ্নপত্র আলাদা আলাদা হবে। কিন্তু যথাসম্ভব সমমানের হবে।

অংশগ্রহণকারীদের যে সকল বিষয়ে প্রস্তুতি গ্রহণ করবে:

  • স্বদেশের তথ্য
  • দেশের সংবিধান ও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানসমূহ
  • আইন-কানুন
  • নির্বাচন প্রক্রিয়া, নির্বাচন সংক্রান্ত আইন ও বিধি-বিধান
  • বিগত নির্বাচনসমূহের তথ্য ও ফলাফল
  • নাগরিক অধিকার, নাগরিকদের দায়িত্ব ও কর্তব্য
  • দেশীয় ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি
  • আন্তর্জাতিক ঘটনাপ্রবাহ
  • সাধারণ জ্ঞান

পুরস্কার:

  • কলেজ পর্যায়ে প্রথম ১০ জন ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রথম ১০ জন, মোট ২০ জনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে এবং তাদেরকে পুরস্কৃত করা হবে।
  • শুধু চ্যাম্পিয়ন ও রানারআপ জাতীয় অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পাবে।
  • সকল অংশগ্রহণকারীকে সনদ পত্র দেয়া হবে।

আয়োজন ও সার্বিক ব্যবস্থাপনা:

  • অলিম্পিয়াড আয়োজন করবে স্থানীয় সুজন কমিটি।
  • আয়োজক কমিটি ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, অভিভাবকদের নিয়ে একটি ভলান্টিয়ার টিম গঠন করবে।
  • এই ভলান্টিয়ার টিম পরীক্ষাসহ অনুষ্ঠানের সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করবে।
  • সুজন সচিবালয় থেকে একটি টিম সহায়কের ভূমিকা পালন করবে।

রেজিস্ট্রেশন:

  • অংশগ্রহণকারীদের ২০ টাকা ফি দিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগতভাবে নাম রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।
  • কেন্দ্র থেকে সরবরাহকৃত রেজিস্ট্রেশন ফরমে স্থানীয় আয়োজকগণ রেজিষ্ট্রেশন করবেন।
  • রেজিস্ট্রেশন ফরম-এর নিচের অংশ অংশগ্রহণকারীর আইডি কার্ড হিসেবে বিবেচিত হবে। উপরের অংশ আয়োজকরা সংরক্ষণ করবেন।
  • ক্রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত সকল কাজ অলিম্পিয়াডের দুই দিন আগে সম্পন্ন করতে হবে।

ব্যয়:

  • কেন্দ্র থেকে রেজিস্ট্রেশন ফরম, পুরস্কার, সার্টিফিকেট, লিফলেট, প্রশ্নপত্র, ব্যানার, প্লাকার্ড এবং কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদের যাতায়াত ও থাকা খাওয়ার খরচ বহন করা হবে।
  • হলরুম/প্যান্ডেল, ডেকোরেশন, সাউন্ড সিষ্টেম, স্টেশনারী, স্বেচ্ছাসেবীদের আপ্যায়ন, ছবি/ভিডিও ইত্যাদি খরচসমূহ সংগৃহীত রেজিস্ট্রেশন ফি থেকে বহন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন ফি থেকে ব্যয় সঙ্কুলান না হলে স্থানীয়ভাবে তা সংগ্রহের উদ্যোগ নিতে হবে। উল্লেখ্য, অংশগ্রহণকারীদের জন্য কোন আপ্যায়নের ব্যবস্থা থাকবে না।

Advertisements