আসন্ন নির্বাচন, সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি এবং করণীয় শীর্ষক সুজনের নাগরিক সমাবেশ

SAM_5662সংখ্যালঘুদের মাঝে নাগরিকত্ববোধ জাগ্রত করার মাধ্যমে তাদের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধিতে সহায়তা করতে ‌‌’আসন্ন নির্বাচন, সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি এবং করণীয়’ শীর্ষক সুজনের নাগরিক সমাবেশ। নির্বাচনপূর্ব, নির্বাচনকালীন এবং নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা থেকে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী যাতে একতাবদ্ধ হয়ে নিজেদের প্রচেষ্টায় এবং প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়ে নিজেদের রক্ষা করতে পারে সে উদ্দেশ্যে সুজনের এই প্রচেষ্টা।

নাগরিক সমাবেশের আলোচনায় উঠে আসে, জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোত্র-নারী-পুরুষ-ধনী-দরিদ্র সকল নাগরিকের অধিকার সমান – এটা আমাদের সাংবিধানিক অধিকার। এ দেশের প্রতিটি লড়াই সংগ্রাম ও অর্জনে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খৃষ্টান সকলের অবদান ছিল। যুগ যুগ ধরে আমাদের দেশে সকল ধর্মের মানুষের পারস্পরিক সহাবস্থান ছিল।

সংবিধানের ৭(১) অনুচ্ছেদে বলা আছে ’প্রজাতন্ত্রের সকল ক্ষমতার মালিক জনগণ’। অনুচ্ছেদ ২৩ (ক) রাষ্ট্রকে বলে দিয়েছে বিভিন্ন উপজাতি, ক্ষুদ্র জাতিসত্ত্বা, নৃ-গোষ্ঠী ও সমপ্রদায়ের অনন্য বৈশিষ্ট্যপূর্ণ আঞ্চলিক সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য সংরক্ষণ, উন্নয়ন ও বিকাশের ব্যবস’া গ্রহণ করার জন্য। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে তৈরি সংবিধান বাংলাদেশের নাগরিকদের মাঝে কোন বিভাজন রাখেনি।

সুজন সমাবেশের মাধ্যমে সংখ্যালঘুদের মাঝে এই উপলব্ধি জাগিয়েছে যে, সংখ্যালঘুরা কারো অনুগ্রহে এ দেশে বসবাস করছে না। তারাও দেশের জন্য অবদান রাখছে। তাই তাদের ওপর কোনো আঘাত এলে সংঘবদ্ধভাবেই প্রতিরোধ করতে হবে। প্রশাসনের সহায়তা নিতে হবে। শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সহায়তা নিতে হবে।
নাগরিক সমাবেশ সঞ্চালনা করেন সুজন কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার।

গৌরনদী, বরিশাল
‘দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সংখ্যালঘু সমপ্রদায়ের মধ্যে আস’া সৃষ্টি করাসহ তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে নাগরিক সংলাপ’ শিরোনামে সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয় ২৯ নভেম্বর বিকাল ৩.০০টায় বরিশাল গৌরনদীর মাহিলাড়া ইউনিয়নের মাহিলাড়া ডিগ্রী কলেজ মিলনায়তনে। দুই শতাধিক অংশগ্রহণকারীর মধ্যে নারী উপসি’তি ছিল ১২%। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন সুজন কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও বরিশাল জেলা কমিটির সভাপতি জনাব আক্কাস হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন সুজন কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার।  অন্যান্যের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন সুজন বরিশাল মহানগরী কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজল ঘোষ ও সুজন গৌরনদী উপজেলার সভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম জহির প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব আক্কাস হোসেন বলেন, ‘সুজন বাংলাদেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে চায়, সুজন চায় সামপ্রদায়িকতা মুক্ত একটি দেশ। সেই দেশ গড়তে সবাইকে সামপ্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে লড়তে হবে। আমরা মনে করি এদেশে কেউই সংখ্যালঘু নয়, বরং সবাই স্বাধীন দেশের নাগরিক।’

নাগরিকদের মধ্যে সংলাপে অংশ নেন গৌতম লাল ভৌমিক, সুদীপ দাস, এমএম সেকান্দার আলী প্রমুখ।

রামপাল, বাগেরহাট
৬ ডিসেম্বর ২০১৩ বিকাল ৩ টায় জয়নগর হাই স্কুল প্রাঙ্গন, রামপাল, বাগেরহাটে ’আসন্ন নির্বাচন, সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি ও করণীয়’ শীর্ষক নাগরিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। নাগরিক সমাবেশে বিভিন্ন ধর্ম বর্ণ গোত্রের ১২০ জনের অধিক সংখ্যালঘু অংশ নেন যার মধ্যে ৫০% উপসি’তি ছিল নারী।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জয়নগর হাই স্কুল এর প্রধান শিক্ষক বাবু জয়ন- কুমার ঢালী। স্বাগত বক্তব্য দেন রামপাল উপজেলা সুজন কমিটির সভাপতি তাসলিমা খাতুন। বক্তব্য রাখেন বাবু স্বপন কুমার মন্ডল, স্বর্ন কুমার পাড়ে, মুক্তিযোদ্ধা সুধাংশু কুমার মন্ডল, কাত্যয়নী হালদার, মনির হোসেন, শান’নু রায়, রমেন্দ্র নাথ বিশ্বাস, মাহবুবুল আলম বুলবুল প্রমুখ।

মংলা, বাগেরহাট
৭ ডিসেম্বর ২০১৩ বিকাল ৩ টায় কানাইনগর জেলে পাড়া, মংলা, বাগেরহাটে ’আসন্ন নির্বাচন, সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি ও করণীয়’ শীর্ষক নাগরিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় ৪০০ নারী-পুরুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ নাগরিক সমাবেশে ৬০% অধিক নারী অংশ নেন।

সভাপতিত্ব করেন মংলার সুজন সম্পাদক নূর আলম শেখ। বক্তব্য রাখেন সুজন সদস্য তানজিম হোসেন মুকুল, চাঁদপাই মৎস্যজীবী সমিতির সভাপতি বিদ্যুৎ মন্ডল, রাজনৈতিক নেতা নিবাস সরদার ও নজরুল ইসলাম, স্কুল শিক্ষক বাবু তারাপদ বিশ্বাস প্রমুখ।

বটিয়াঘাটা, খুলনা
৮ ডিসেম্বর ২০১৩ বিকাল ৩ টায় হেতালবুনিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বর, বটিয়াঘাটা, খুলনায় ’আসন্ন নির্বাচন, সামপ্রদায়িক সমপ্রীতি ও করণীয়’ শীর্ষক নাগরিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযোদ্ধা নারায়ন চন্দ্র মিস্ত্রী। নাগরিক সমাবেশে বিভিন্ন ধর্ম বর্ণ গোত্রের ১৯৭ জন অংশ নেন। সমাবেশে নারীদের উপসি’তি ছিল ৬০% এরও অধিক।

বক্তব্য দেন মুক্তিযোদ্ধা সার্জেন্ট (অব:) দাউদ হোসেন, বটিয়াঘাটা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ভগবতী গোলদার, শ্রীমতি গুরুদাসী বৈরাগী, মাওলানা আবু মুসা, নিথর বিশ্বাস, সুচিত্রা প্রমুখ।

আগৈলঝাড়া, বরিশাল
১৩ ডিসেম্বর ২০১৩ বিকাল ৩ টায় বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার বাহাদুরপুর নিশিকান- গাইন বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ এ অনুষ্ঠিত হয় ’আসন্ন নির্বাচন, নাগরিকদের নিরাপত্তা’ শীর্ষক নাগরিক সমাবেশ। ৩০০ র অধিক অঙশগ্রহণকারীর এ আয়োজনে নারী উপসি’তি ছিল ১২%।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন স’ানীয় সুজন সভাপতি রমেশ চন্দ্র দাস। প্রধান অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শেফালী রানী সরকার। অতিথি হিসেবে উপসি’ত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রইচ সেরনিয়াবাত,  অধ্যক্ষ রনজিত কুমার মধু, আগৈলঝারা সুজন সভাপতি সিরাজুল হক সরদার, জহুরুল ইসলাম জাহিদ, উপেন্দ্রনাথ সরকার, রাধেশ্যাম গাইন। আরো মতবিনিময় করেন অরুন চন্দ্র হালদার, মৃণাল কানি- রায়, নারায়ন চন্দ্র, দীপক ঘটক, মো. মাসুদ হাসান, মন্টু জয়ধর, দীনেশ চন্দ্র জয়দর।

নাগরিক সমাবেশে সংখ্যালঘুরা তাদের মতামত তুলে ধরেন
*তারা প্রশাসনের কাছে দাবী জানান, নির্বাচনকালীন এ সময়টায় যেন তাদের এলাকার নিরাপত্তার বিষয়টা বিশেষভাবে খেয়াল রাখা হয়;

* সংখ্যালঘুরা নিজেরা আরো সংগঠিত হবেন বলে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হন;
* সচেতন এবং সংগঠিত প্রচেষ্টাই তাদেরকে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে মুক্ত রাখবে – এ বিশ্বাস সৃষ্টি হয়েছে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে;
* সুজনের এ প্রচেষ্টা তাদেরকে আত্মবিশ্বাসী করেছে বলে উল্লেখ করেন এবং সুজন নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান;

*তাদের তাদের পাশে স’ানীয় প্রশাসন ও রাজনীতিবিদদের দাঁড়ানোর জন্য ধন্যবাদ জানান।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s