‘চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন এবং স্থানীয় সরকার সংস্কার প্রসঙ্গ’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত

Round table 18.02 aনির্বাচনই যথেষ্ট নয়, উপজেলা পরিষদকে কার্যকর করার আহ্বান

দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ ও স্থানীয় সরকার ব্যবস’াকে শক্তিশালী ও কার্যকর করা আমাদের সাংবিধানিক নির্দেশনা। অথচ স্বাধীনতার ৪৩ বছর পরও বাংলাদেশে স্বশাসিত স’ানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেনি। এদিকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের কার্যক্রম শুরু হয়ে গিয়েছে। এমনি প্রেক্ষাপটে ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ প্রগতি সম্মেলন কেন্দ্র, মুক্তি ভবন, পুরানা পল্টন-এ ‘সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক’-এর পক্ষ থেকে ‘চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন এবং স্থানীয় সরকার সংস্কার প্রসঙ্গ’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়। বিচারপতি কাজী এবাদুল হকের উপস্থাপনায় আলোচনায় অংশ নেন সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার, সুজন নির্বাহী সদস্য আলী ইমাম মজুমদার, রাজনীতিবিদ রুহিন হোসেন প্রিন্স, হুমায়ূন কবীর হিরু, সাদেক সিদ্দিকী, এম এস সিদ্দিকী, আবুল হাসনাত, শিরীন বানু, নালিতাবাড়ী উপজেলার প্রাক্তন চেয়ারম্যান আলহাজ্ব বদিউজ্জামান বাদশা প্রমুখ।

সুজন নির্বাহী সদস্য ও স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক তোফায়েল আহমেদ মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। স’ানীয় নির্বাচন হলেও এ নির্বাচন জাতীয় রাজনীতির একটি টার্নিং পয়েন্ট হতে পারে বলে তিনি উল্লেখ করেন। ক্ষমতাসীন এবং ক্ষমতার বাইরের সকল দল স’ানীয় নেতৃত্বে সাংগঠনিকভাবে নিজেদের সংহত করার সুযোগ পাচ্ছে বলে তিনি মনে করেন। আইন পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে নির্দলীয়ভাবে অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশন উদ্যোগী হচ্ছে না বলে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘দেরিতে হলেও উপজেলা পরিষদের তথ্য উন্মুক্ত করা হচ্ছে যদিও এ কাজটি আরও দ্রুততার সাথে হওয়া উচিত।’

উপজেলা পরিষদকে সচল করতে বিদ্যমান আইনেই কিছু কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব বলে তিনি উল্লেখ করেন। ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভার সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্য ও কাউন্সিলরগণের মধ্য থেকে এক তৃতীয়াংশ মহিলা সদস্যের নির্বাচন আগামী মে ২০১৪-এর মধ্যে সম্পন্ন করার প্রস-াব দেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান এর দ্বন্দ্বের অবসানে তাদের মাঝে কার্যকর সম্পর্ক তৈরির জন্য সরকারকে আহ্বান জানান। ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা, সংসদ সদস্যর বাজেটগুলো একত্র করে স’ানীয় পরিকল্পনার মাধ্যমে সুষ্ঠুভাবে স’ানীয় কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব বলে তিনি মনে করেন। নির্বাচনী গণতন্ত্রের পরিবর্তে সুষ্ঠু গণতন্ত্র নিশ্চিত করার জন্য স’ানীয় সরকার, সংসদীয় আদলে চলার প্রস্তাব করেন তিনি।

ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘উপজেলা নির্বাচন হওয়া জরুরি, তবে নির্বাচন হলেই বিদ্যমান সমস্যার সমাধান হবে না। ক্ষমতার দ্বন্দ্বের অবসান, স’ানীয় উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে প্রকৃত স্থানীয় মানুষের কাছে পৌঁছানো এবং তৃণমূলের মানুষের জীবন জীবিকায় সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টির জন্য নির্বাচনই যথেষ্ট হবে না।’ উপজেলা পরিষদগুলোকে কার্যকর করতে হবে। সংসদ সদস্যকে উপজেলা পরিষদের উপদেষ্টা বানিয়ে উপদেষ্টার পরামর্শ গ্রহণ করা পরিষদের জন্য বাধ্যতামূলক করে সংসদ সদস্যদের যে কর্তৃত্ব দেওয়া হয়েছে তা অনাকাঙ্খিত বলে উল্লেখ করেন তিনি। ভোটারের তথ্যভিত্তিক ক্ষমতায়নে নির্বাচন কমিশনের গড়িমসির সমালোচনা করেন সুজন সম্পাদক।

আলী ইমাম মজুমদার বলেন, ‘সংসদ সদস্যরা উপজেলা পরিষদের উপদেষ্টা হওয়ায় উপজেলা পরিষদের কার্যকারিতা বিপন্ন হচ্ছে। উপজেলা নির্বাচন রাজনৈতিকভাবে হওয়ায় প্রক্রিয়াটা যথাযথ ফল দিবে কি না, তা আমাদের ভেবে দেখা দরকার।’

রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, ‘এবারের নির্বাচনেও মনোনয়ন বানিজ্য হয়েছে যা অনাকাক্ষিত। এমপিতন্ত্রের হাতে বন্দী উপজেলা।’ এমপিদেরকে আইন প্রণয়ন এবং রাষ্ট্রের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান। উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিচালনার ভার স’ানীয় জনপ্রতিনিধির কাছে রাখার ওপর জোর দেন তিনি। উপজেলাকে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্ধ এবং দায়-দায়িত্ব দেওয়ার প্রস-াব করেন। উপজেলা পরিষদকে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করার দাবী জানান তিনি।

সাবেক সংসদ সদস্য হুমায়ুন কবীর হিরু বলেন, ‘রাজনৈতিক মতলবে এ উপজেলা নির্বাচন হচ্ছে। স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালী করতে হলে মতলববাজী পরিহার করে রাজনৈতিক সদিচ্ছার মাধ্যমে ইতিবাচক পদক্ষেপ নিতে হবে।’

সাদেক সিদ্দিকী বলেন, ‘এমপিদের মধ্যে দেশপ্রেম, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থাকলে এমপিদের উপদেষ্টা পদ সমস্যা নয়। এমপিরাও জনগণের দ্বারা নির্বাচিত, তাদেরও জনগণের প্রতি দায়বদ্ধতা আছে। সকল নির্বাচিত প্রতিনিধিই সম্মিলিতভাবে জনগণের দাবী পূরণে কাজ করতে হবে।’ শিরীন বানু বলেন, ‘রাজনৈতিক দলগুলো তাদের নিজস্ব এজেন্ডা বাস-বায়নের জন্য স’ানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাজে লাগাতে চায় তাই স’ানীয় সরকারকে শক্তিশালী করতে চায় না। রাজনৈতিক দলগুলো সরকারে গেলে তাদের পার্টি সেক্রেটারীকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বানানো হয় যাতে স’ানীয় পর্যায়কে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।’

এম এস সিদ্দীকী বলেন, ‘সংসদ সদস্যদের যে দায়িত্ব পালন করার জন্য নির্বাচিত করা হয় প্রকৃত অর্থে তা তারা পালন করেন না।’ এবারের উপজেলা নির্বাচনকে ড. তোফায়েল আহমেদ বললেন, ’মেঘ না চাইতেই বৃষ্টি’। আর টিআইবি গবেষক নাহিদ বলেন, ‘জেলা পরিষদ নির্বাচনের মেঘ জমে আছে অথচ জেলা পরিষদ নির্বাচন হচ্ছে না।’ দ্রুততম সময়ে জেলা পরিষদ নির্বাচনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন টিআইবি এই গবেষক।

মূল প্রবন্ধ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s